মিয়ানমার পারস্পরিক সম্পর্ককে বিরক্তিকর জায়গায় নিয়ে গেছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মিয়ানমার পারস্পরিক সম্পর্ককে বিরক্তিকর জায়গায় নিয়ে গেছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

 

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেছেন, ঐতিহাসিকভাবেই রাজনৈতিক, সাংষ্কৃতিক, সামাজিক কিংবা অর্থনৈতিক বিবেচনায় ভারত বাংলাদেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার ও প্রতিবেশী। তবে রোহিঙ্গা ঢলের পর বাংলাদেশের আরেক প্রতিবেশী মিয়ানমার পারস্পরিক সম্পর্ককে বিরক্তিকর জায়গায় নিয়ে গেছে। তবে আমরা বিশ্বাস করি, রোহিঙ্গারা নিজের দেশে ফিরে যেতে পারবে।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) আয়োজিত ‘বিশ্ব পরিস্থিতির পরিবর্তন: বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি’ শীর্ষক এক সেমিনারে আজ বুধবার প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, গোটা বিশ্ব সাক্ষী ২০১৭ সালে কীভাবে নির্যাতিত হয়ে সাড়ে ছয় লাখ মানুষ মাত্র তিন মাসে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এখন দেশে অবস্থান করছে দশ লাখ মিয়ানমারের অধিবাসী।

তিনি আরো বলেন, সৌদি আরব মুসলিম বিশ্বকে বরাবরের মতোই নেতৃত্ব দিয়েছে। জলবায়ু সংকটে কার্যকরী ভূমিকা নিতে নেতৃত্ব দিয়েছে ফ্রান্স। বিশ্ব অব্যাহতভাবে বদল হচ্ছে। তাই নতুন সমুদ্রসীমানা, আঞ্চলিক সহযোগিতা ঘনিষ্ঠ প্রতিবেশীর সঙ্গে সম্পর্ক, জাপান, চীন, ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নয়ন হবে। মানবাধিকার রক্ষায় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বিশ্বে বাংলাদেশের সম্মান বেড়েছে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, বিআইআইএসএস এর চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূত মুন্সী ফয়েজ আহমদ এবং মহাপরিচালক মেজর জেনারেল একেএম আব্দুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

Make Website

 

Quick Contact