Trending

শিশুদের কাঠের বাইসাইকেলের ইউরোপ জয়

বাগেরহাটে কাঠ দিয়ে তৈরি হচ্ছে শিশুদের জন্য পরিবেশবান্ধব বাইসাইকেল। এসব সাইকেল বাংলাদেশের কোনো বাজারে খুঁজে পাওয়া না গেলেও সরাসরি রপ্তানি হচ্ছে ইউরোপের বাজারে। চাকা থেকে শুরু করে পুরো কাঠামোই কাঠ দিয়ে তৈরি করছে বাগেরহাট বিসিক শিল্প নগরীর ন্যাচারাল ফাইবার নামে একটি প্রতিষ্ঠান। দেখতে খেলনা মনে হলেও দেশের বাইরে পরিবেশবান্ধব এ ‘বেবি ব্যালান্স বাইসাইকেল’ ব্যবহার হচ্ছে বাহন হিসেবে। দেশের অপ্রচলিত রপ্তানি পণ্যে যুক্ত হওয়া নতুন এই সাইকেল তৈরির উদ্যোক্তারা এ ছাড়াও কাঠ দিয়ে তৈরি করছেন সান বেড, হোটেল বেড, কুকুর-বিড়ালের খেলনাসহ পরিবেশবান্ধব আরও বেশ কিছু আকর্ষণীয় ফার্নিচার। সেগুলোও রপ্তানি হচ্ছে বিশ্ববাজারে। বেবি ব্যালান্স বাইসাইকেল অপ্রচলিত রপ্তানি পণ্য হিসেবে ইউরোপের বাজারে রপ্তানির পর সাড়া ফেলেছে।

বাগেরহাট শহরতলির বিসিক শিল্প নগরীর ন্যাচারাল ফাইবার প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দেখা যায়, স্থানীয় নারী ও পুরুষ শ্রমিক কাঠ দিয়ে বেবি ব্যালান্স বাইসাইকেলটি তৈরি করছেন। প্রতিদিন এ ফ্যাক্টরিতে নিয়মিত-অনিয়মিত ৯০ থেকে ১২০ শ্রমিক কাজ করে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব শ্রমিক বাইসাইকেলটি ১১টি আলাদা অংশ তৈরি করেন। এদের মধ্যে কেউ চাকা তৈরিতে অভিজ্ঞ, কেউ তৈরি করেন সাইকেলের হ্যান্ডেল বা ফ্রেম। রং দিয়ে পলিশের পর এসব বাইসাইকেল আকর্ষণীয় করে তোলা হচ্ছে। একটা বাইসাইকেল বানাতে গড়ে প্রায় ৮ ঘণ্টা সময় লাগে। এভাবে

এভাবে শ্রমিকরা প্রতিদিন ৩০টি বাইসাইকেল তৈরি করছেন। ফ্যাক্টরিতে শিল্পী রানী সরকার নামে এক শ্রমিক বলেন, রাজমিস্ত্রি স্বামীর আয়ে দুই মেয়ের লেখাপড়া করাতে পারছিলাম না। এক বছর ধরে এখানে বাইসাইকেল ফিটিংসের কাজ করছি। মাসে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা আয় হয়। এই আয়ে মেয়েদের পড়ালেখার পাশাপাশি সংসারের চাহিদা পূরণ হচ্ছে। ন্যাচারাল ফাইবারের উদ্যোক্তা মোস্তাফিজ আহমেদ জানান, ২০০৫ সালে বাগেরহাট বিসিকে স্থাপন করে নারকেলের ছোবড়া দিয়ে ম্যাট্রেস ছাড়াও কয়ার ফেল্ট, কোকো পিট, ডিসপোজেবল স্লিপারসহ বিভিন্ন পণ্য তৈরি করে দেশে বিক্রির পাশাপাশি বিদেশেও রপ্তানি করেছি। গত কয়েক বছর নারকেলের ফলন কমে যাওয়ায় কাঁচামালের সমস্যা দেখা দেয়। এ অবস্থায় প্রতিষ্ঠান টিকিয়ে রাখতে নতুন পণ্য ও ক্রেতা খুঁজতে লাগলাম। গ্রিসের কোকো-ম্যাট নামের একটি প্রতিষ্ঠান পেলাম যারা পরিবেশবান্ধব পণ্য বাজারজাত করে। প্রথম দিকে তাঁরা আমাকে কাঠের তৈরি ৪০ হাজার পিস বেবি ব্যালান্স বাইসাইকেলের চাহিদা দিল। আমি ও আমার ভাইসহ উদ্যোক্তা মোজাহিদ আহমেদ নেমে পড়লাম স্যাম্পল অনুযায়ী কাঠ দিয়ে বাইসাইকেল তৈরিতে। বাইসাইকেল তৈরির পর তারাও পছন্দ করল। ইতোমধ্যে ২০ হাজার পিস বাইসাইকেল গ্রিসে পাঠানো হয়েছে, আরও ২০ হাজার পিস তৈরি হচ্ছে কারখানায়। এভাবেই কাঠের সাইকেল তৈরি ও রপ্তানির গল্প বলছিলেন তিনি। প্রতিটি বেবি ব্যালান্স বাইসাইকেল ১৮ ইউরো, কাঠের বিশেষ চেয়ার ১৭ থেকে ১৮ ইউরো, সান বেড ৫০ ইউরো ও হোটেল বেড ৫০ থেকে ৬০ ইউরো মূল্যে বিদেশে রপ্তানি করা হচ্ছে। অপ্রচলিত পণ্য রপ্তানিতে কিছু সংকটের কথা জানিয়ে এ উদ্যোক্তা বলেন, রপ্তানির জন্য সরকার আমাদের ১০ শতাংশ প্রণোদনা দিতেন। এখন প্রণোদনা কমিয়ে দেওয়ায় টিকে থাকা মুশকিল হয়ে পড়েছে।’

Show More

One Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button