Bangladesh

খাদ্যের বাড়তি দামে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে, আবার ১০ শতাংশ ছুঁইছুঁই, বাংলাদেশে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব কার, কে করবে ব্যর্থতার জবাবদিহি

গত দুই মাসে দেশে মূল্যস্ফীতি সামান্য কমার পর গত আগস্টে তা আবার বেড়েছে। এ মাসে মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ৯ দশমিক ৯২ শতাংশ। তবে লক্ষণীয় দিক হচ্ছে, আগস্টে দেশে খাদ্য মূল্যস্ফীতি হঠাৎ অনেক বেড়ে গেছে। এ মাসে সার্বিক খাদ্য মূল্যস্ফীতি হয়েছে ১২ দশমিক ৫৪ শতাংশ। গ্রাম ও শহরে খাদ্য মূল্যস্ফীতি এখন ১২ শতাংশের বেশি।

আজ রোববার বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) মূল্যস্ফীতির হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করেছে। সেখানে মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধির এমন চিত্র দেখা গেছে।

সরকারের প্রত্যাশা ছিল আগস্টে মূল্যস্ফীতি কমবে। ২৯ আগস্ট জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির সভার (একনেক) পর পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘মূল্যস্ফীতি জোর করে কমানো যায় না। কার্যকর নীতি নিতে হবে। আমি ঝুঁকি নিয়ে বলতে পারি, চলতি আগস্টে মূল্যস্ফীতি ২ থেকে ৪ পয়েন্ট কমবে।’

আগস্টে মূল্যস্ফীতি ৯ দশমিক ৯২ শতাংশ হওয়ার মানে হলো, ২০২২ সালে আগস্টে একজন মানুষ যে পণ্য ও সেবা ১০০ টাকায় কিনতেন, চলতি বছরের আগস্টে একই পণ্য কিনতে তাঁর খরচ হয়েছে ১০৯ টাকা ৯২ পয়সা। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে খরচ বেড়েছে ৯ টাকা ৯২ পয়সা। মূল্যস্ফীতি হলো একধরনের করের মতো, যা ধনী-গরিব নির্বিশেষে সবার ওপর চাপ বাড়ায়।

এর আগের মাসে, অর্থাৎ জুলাইয়ে মূল্যস্ফীতি ছিল ৯ দশমিক ৬৯ শতাংশ এবং জুনে তা ছিল ৯ দশমিক ৭৪ শতাংশ। তবে গত মে মাসে দেশে মূল্যস্ফীতি হয়েছিল ৯ দশমিক ৯৪ শতাংশ। এই হার গত প্রায় এক যুগের মধ্যে সর্বোচ্চ। এ ছাড়া গত ২০২২-২৩ অর্থবছরের গড় মূল্যস্ফীতি ছিল ৯ দশমিক ০২ শতাংশ, যা বছরওয়ারি হিসাবে এক যুগের মধ্যে সর্বোচ্চ।

বিবিএসের হালনাগাদ তথ্যে দেখা গেছে, আগস্টে সার্বিক খাদ্য মূল্যস্ফীতি হয়েছে ১২ দশমিক ৫৪ শতাংশ। আগের মাস, অর্থাৎ জুলাইয়ে এ হার ছিল ৯ দশমিক ৭৬ শতাংশ। এর মানে, আগস্টে খাদ্য মূল্যস্ফীতি বেড়েছে ২ দশমিক ৭৮ শতাংশ।
এর মধ্যে গ্রাম এলাকায় আগস্টে খাদ্য মূল্যস্ফীতি হয়েছে ১২ দশমিক ৭১ শতাংশ। আর শহর এলাকায় খাদ্য মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ১২ দশমিক ১১ শতাংশে। উভয় ক্ষেত্রে খাদ্য মূল্যস্ফীতি জুলাইয়ে ১০ শতাংশের নিচে ছিল।

অন্যদিকে সার্বিক খাদ্যবহির্ভূত মূল্যস্ফীতি জুলাইয়ের ৯ দশমিক ৪৭ শতাংশ থেকে কমে আগস্টে ৭ দশমিক ৯৫ শতাংশ হয়েছে। এর মধ্যে আগস্টে গ্রাম এলাকায় খাদ্যবহির্ভূত মূল্যস্ফীতি ৭ দশমিক ৩৮ শতাংশ ও শহর এলাকায় এটি ৮ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

এ ছাড়া গ্রামে এখন সার্বিক মূল্যস্ফীতি ৯ দশমিক ৯৮ শতাংশ, যা জুলাইয়ে ছিল ৯ দশমিক ৭৫ শতাংশ। আর শহরে এখন সার্বিক মূল্যস্ফীতি ৯ দশমিক ৬৩ শতাংশ, যা জুলাইয়ে ছিল ৯ দশমিক ৪৩ শতাংশ।

সরকার ও সাধারণ মানুষের কাছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জবাবদিহির কিন্তু অসংখ্য উদাহরণ আছে। কেননা নিয়ন্ত্রণহীন মূল্যস্ফীতি একদিকে যেমন একটি সরকারকে অজনপ্রিয় করে, অন্যদিকে সীমিত আয়ের সাধারণ মানুষ থাকে চরম কষ্টে। ফলে মানুষের জানার অধিকার আছে, কেন মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ করা গেল না? আর সাধারণ মানুষ যাতে জানতে পারে, সে কারণেই বিভিন্ন দেশ আইন করে সেই ব্যবস্থাও রেখেছে।

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হলে
• ভারতে পরপর তিন প্রান্তিকে ব্যর্থ হলে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে লিখিত জবাব দিতে হয়
• ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের গভর্নর ও অর্থমন্ত্রীর মধ্যে খোলা চিঠি বিনিময় করতে হয়
• ফিলিপাইনে প্রেসিডেন্ট ও দেশের মানুষের উদ্দেশে খোলা চিঠি লিখতে হয়

বিশ্বের প্রায় সব দেশেই জবাবদিহির একটা নির্দিষ্ট কাঠামো আছে। যেমন ভারতে আরবিআই অ্যাক্ট ৪৫ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক রিজার্ভ ব্যাংক ইন্ডিয়া (আরবিআই) যদি পরপর তিন প্রান্তিকে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয় তাহলে আনুষ্ঠানিকভাবে কেন্দ্রীয় সরকারকে লিখিত প্রতিবেদন দিতে হয়। সেই প্রতিবেদনে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে কর্মপরিকল্পনা এবং কত দিনের মধ্যে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে, তার সম্ভাব্য সময়সীমাও লিখে দিতে হয়। ব্যর্থ হওয়ার ঠিক এক মাসের মধ্যে আরবিআই গভর্নর এই চিঠি লিখতে বাধ্য।

একইভাবে জবাবদিহির অংশ হিসেবে মূল্যস্ফীতি লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে না থাকলে ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের গভর্নর ও অর্থমন্ত্রীর মধ্যে খোলা চিঠি বিনিময় হতে হয়। সেই চিঠিতে গভর্নরকে জানাতে হয় কেন মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। একই সঙ্গে লক্ষ্য পূরণে কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে, তা-ও বলতে হবে। এই চিঠি আবার গোপন করা যাবে না, ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে।

এমনকি ফিলিপাইনের মতো দেশেও কেন্দ্রীয় ব্যাংককে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হলে দেশের প্রেসিডেন্ট ও দেশের মানুষের উদ্দেশে খোলা চিঠি লিখতে হয়, যা তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়। জ্যামাইকার গভর্নরকেও মুদ্রানীতি ঘোষণার আগেই দেশটির অর্থমন্ত্রীকে প্রস্তাবিত নীতির কথা জানিয়ে চিঠি লিখতে হয়। জ্যামাইকার আইনেই এই চিঠি অর্থ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশের কথা বলা আছে।

একই ধরনের চিঠি লিখতে হয় কানাডার কেন্দ্রীয় ব্যাংক গভর্নরকেও। মূল্যস্ফীতির লক্ষ্য এবং তা অর্জনের কৌশল নিয়ে প্রতি পাঁচ বছর পর কানাডা সরকার ও কানাডার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মধ্যে যৌথ সম্মতিপত্রে সই করতে হয়। এ নিয়ম অনুযায়ী লক্ষ্য অর্জন হচ্ছে কি না, তা নিয়ে জবাবদিহি করতে হয় গভর্নরকে। তুরস্কেও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আইন কেন মূল্যস্ফীতির লক্ষ্য অর্জন করা গেল না এবং ভবিষ্যতে কী করা হবে, তা নিয়ে সরকারের উদ্দেশ্যে গভর্নরকে প্রতিবেদন দিতে হয়।

প্রশ্ন হচ্ছে, জবাবদিহি কেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নরকেই করতে হচ্ছে। বিশ্ব অর্থনীতিতে উচ্চ মূল্যস্ফীতির অধ্যায় শুরু হয়েছিল ষাটের দশকের মাঝামাঝি থেকে, যা অব্যাহত থাকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত। আধুনিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনায় মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের দায়দায়িত্ব কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ওপর ন্যস্ত হয়েছে মূলত এর পর থেকেই। মূল্যস্ফীতির লক্ষ্য নির্ধারণ বা ইনফ্লেশন টার্গেটিং বিষয়টিও তখন থেকেই শুরু। অর্থাৎ মূল্যস্ফীতির হার নির্ধারণ করেই মুদ্রানীতি তৈরি করা শুরু হয়। এই কাজটি প্রথম করেছিল নিউজিল্যান্ড। ১৯৯৭ সালের মন্দার পর থেকেই অন্যান্য দেশও এই নীতি অনুসরণ করে আসছে। বেশির ভাগ দেশেরই লক্ষ্য হচ্ছে মূল্যস্ফীতি ২ থেকে ৪ শতাংশের মধ্যে রাখা।

বাংলাদেশ প্রসঙ্গে আসার আগে তুরস্ক নিয়ে একটু আলোচনা করা যাক। দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান অর্থনীতির মৌলিক রীতিনীতি এমনিতেই তেমন মানেন না। বিশ্ব অর্থনীতির এই সংকটের সময়ও তিনি ক্রমাগতভাবে সুদহার কমিয়েছেন। আর এর ফলও পেয়েছিলেন হাতেনাতে। ২০২২ সালে মূল্যস্ফীতি বেড়ে হয় ৮৫ শতাংশ। ফলে এরদোয়ানকেও অবশেষে মৌলিক অর্থনৈতিক নীতির কাছে নতি স্বীকার করতে হয়। নতুন করে নির্বাচিত হয়ে আসার পর গত জুনে তিনি কেন্দ্রীয় ব্যাংক গভর্নর পরিবর্তন করেন। সাবেক ওয়ালস্ট্রিট ব্যাংকার হাফিজ এরকান গভর্নর হয়েই সুদহার বাড়ানোর নীতি নেন। গত আগস্টেই বেশ বড় আকারে নীতি সুদহার বাড়ানো হয়েছে।

বাংলাদেশের সঙ্গে কিন্তু তুরস্কের মিল আছে। এখানেও সুদহার না বাড়ানোর পণ নিয়ে বসেছিলেন দেশের নীতিনির্ধারকেরা। একশ্রেণির ব্যবসায়ীকে খুশি করতে রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে সুদহার ৯ শতাংশে নির্ধারণ করা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশও নীতি পরিবর্তনে বাধ্য হতে হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে সুদহার। তবে তুরস্কের মতোই অনেক দেরিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ।

মুদ্রানীতি কমিটিতে কারা থাকে
• ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের মুদ্রানীতি কমিটির ৯ সদস্যের চারজন বাইরের অর্থনীতিবিদ
• থাইল্যান্ডে মুদ্রানীতি কমিটির সদস্য সাতজন, এর চারজন বাইরের বিশেষজ্ঞ
• ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুদ্রানীতি কমিটির ছয় সদস্যদের দুজন বাইরের অর্থনীতিবিদ
• বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে শ্রীলঙ্কায় আছে স্টেকহোল্ডার এনগেজমেন্ট কমিটি (এসইসি)

মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হাতে থাকা মূল অস্ত্র হচ্ছে মুদ্রানীতির কার্যকর ব্যবহার। অর্থাৎ সুদহার বাড়িয়ে বা কমিয়ে মুদ্রা সরবরাহ নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এই কাজ করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুদ্রানীতি বিভাগ। প্রতিটি দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকেরই অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ হচ্ছে বিভাগটি। মুদ্রানীতি তৈরি করার সব কেন্দ্রীয় ব্যাংকেই আছে একটি মুদ্রানীতি কমিটি। এখানেও ব্যতিক্রম বাংলাদেশ।

ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের মনিটারি পলিসি কমিটি বা মুদ্রানীতি কমিটির সদস্য ৯ জন। কেন্দ্রীয় ব্যাংক গভর্নর অ্যান্ড্রু বেইলি এর প্রধান। কমিটিতে চারজন রয়েছেন বাইরের বিশেষজ্ঞ। চারজনই অর্থনীতিবিদ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন, গবেষক হিসেবেও খ্যাতি আছে।

থাইল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুদ্রানীতি কমিটির সদস্য সাতজন। গভর্নর ও দুই ডেপুটি গভর্নরের বাইরে বাকি চারজন বাইরের বিশেষজ্ঞ। ব্যাংক অব থাইল্যান্ডের ওয়েবসাইটেই লেখা আছে, গভর্নরের দায়িত্ব মুদ্রানীতি প্রণয়ন করা, তবে সেই নীতিতে ভারসাম্য আনার কাজটি করেন বাইরের চারজন বিশেষজ্ঞ। এই কমিটি বছরে ছয়বার বৈঠকে বসে মুদ্রানীতির কার্যকারিতা নিয়ে আলোচনা করে।

ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মুদ্রানীতি কমিটির সদস্য ছয়জন। গভর্নর এর প্রধান, দুজন সদস্য হচ্ছেন বাইরের দুই বিশেষজ্ঞ। শ্রীলঙ্কার মুদ্রানীতি কমিটিতে বাইরের বিশেষজ্ঞ কেউ নেই। তবে স্টেকহোল্ডার এনগেজমেন্ট কমিটি (এসইসি) নামে তাদের একটি কমিটি আছে। এ কমিটিতে অর্থনীতিবিদ ও বেসরকারি খাতের প্রতিনিধিরা থাকেন। সেখানেই মুদ্রানীতি নিয়ে নিয়মিত পর্যালোচনা হয়। মালয়েশিয়ার মুদ্রানীতি কমিটিতেও বাইরের দুজন অর্থনীতিবিদ আছেন। এমনকি নাইজেরিয়ার মুদ্রানীতি কমিটির ১২ সদস্যের মধ্যে চারজনই বাইরের বিশেষজ্ঞ।

বাংলাদেশে যা আছে
• বাংলাদেশে মুদ্রানীতি কমিটির সব সদস্যই বাংলাদেশ ব্যাংকের উর্ধতন কর্মকতা
• আইন অনুযায়ী গভর্নরকে বছরে একবার সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে উপস্থিত হয়ে মুদ্রানীতি নিয়ে রিপোর্ট উপস্থাপন করার কথা, কিন্তু বৈঠকই হয় না

বাংলাদেশ ব্যাংকেও একটি মুদ্রানীতি বিভাগ আছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে বলা আছে, এই বিভাগ গভর্নরের নির্দেশ অনুযায়ী প্রতি মাসে একবার অথবা প্রতি প্রান্তিকে অন্তত একবার মুদ্রানীতি কমিটির বৈঠকের আয়োজন করবে। এ মুদ্রানীতি কমিটির সদস্য গভর্নর, চার ডেপুটি গভর্নর, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ এবং মুদ্রানীতি বিভাগের নির্বাহী পরিচালক। অর্থাৎ বাইরের কেউ নেই। সুতরাং অর্থনীতিবিদ বা বিশেষজ্ঞদের কোনো স্থান নেই বাংলাদেশ ব্যাংকে।

বাংলাদেশ ব্যাংক পরিচালিত হয় বাংলাদেশ ব্যাংক আইন অনুযায়ী। এই আইনের ৩৮এ ধারায় বলা আছে, গভর্নরকে অবশ্যই বছরে একবার অর্থ মন্ত্রণালয়সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটিতে উপস্থিত হয়ে মুদ্রানীতি নিয়ে রিপোর্ট উপস্থাপন করতে হবে। আইনে ‘শ্যাল’ কথাটির উল্লেখ আছে, অর্থাৎ এটি অবশ্যই পালনীয়। বাংলাদেশের চিত্র অবশ্য দুই দিক থেকেই ব্যতিক্রম। কেননা, অর্থ মন্ত্রণালয়সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটি নিজেরাই নিয়মিত বৈঠক করে না। জাতীয় সংসদে উত্থাপিত কোনো বিল নিয়ে আলোচনা করা ছাড়া এ কমিটির কোনো বৈঠকই হয় না। সুতরাং মুদ্রানীতি নিয়ে আলোচনারও কোনো সুযোগ হয় না।

Show More

47 Comments

  1. Hi, I do think this is an excellent blog. I stumbledupon it
    😉 I may return once again since I saved as a favorite it.
    Money and freedom is the greatest way to change, may you be rich and continue
    to guide other people.

  2. Thank you for every other informative web site.
    Where else may I am getting that kind of info written in such an ideal means?
    I have a challenge that I’m just now working on, and I have been at the look out for such information.

  3. Hello very cool website!! Guy .. Excellent .. Superb .. I will
    bookmark your blog and take the feeds also? I’m glad to find so many helpful information right here
    in the post, we want work out more strategies in this regard, thank you for sharing.

    . . . . .

  4. Today, while I was at work, my sister stole my apple ipad and tested to see if it can survive a 30 foot drop,
    just so she can be a youtube sensation. My apple ipad is now destroyed and
    she has 83 views. I know this is totally off topic but I
    had to share it with someone!

  5. Hello there! This article could not be written any better!

    Going through this post reminds me of my previous roommate!

    He continually kept talking about this. I’ll forward this post
    to him. Fairly certain he’ll have a good read. I appreciate you for
    sharing!

  6. Have you ever considered publishing an e-book or guest authoring on other sites?
    I have a blog based on the same subjects you discuss and would really like to have you share some stories/information. I know my subscribers would value your work.
    If you’re even remotely interested, feel free to send me an e mail.

  7. What i don’t understood is if truth be told how you are now not really much more neatly-preferred than you may be right now.
    You are so intelligent. You know therefore significantly relating to this
    matter, made me for my part believe it from so many numerous
    angles. Its like men and women are not interested unless it is something to
    accomplish with Girl gaga! Your personal stuffs outstanding.
    Always deal with it up!

  8. Hmm it appears like your site ate my first
    comment (it was extremely long) so I guess I’ll just sum it up what
    I wrote and say, I’m thoroughly enjoying your blog.
    I too am an aspiring blog writer but I’m still new
    to the whole thing. Do you have any suggestions for beginner blog writers?
    I’d certainly appreciate it.

  9. Fantastic beat ! I would like to apprentice while you amend your website, how could i subscribe for a blog site?
    The account helped me a acceptable deal. I had been tiny bit acquainted of this your
    broadcast offered bright clear idea

  10. I used to be suggested this blog via my cousin. I’m now
    not certain whether this post is written via him as no one else understand such certain about my difficulty.
    You are amazing! Thanks!

  11. Wonderful beat ! I wish to apprentice while you amend your site,
    how could i subscribe for a blog website? The account aided me a acceptable deal.
    I had been a little bit acquainted of this your broadcast
    offered bright clear concept

  12. Unquestionably imagine that which you stated. Your favourite justification seemed to be at the
    net the easiest factor to be aware of. I say to you, I definitely
    get irked while people consider issues that they just don’t realize about.
    You managed to hit the nail upon the top and defined out
    the whole thing with no need side effect , folks could take a signal.
    Will probably be back to get more. Thank you

  13. It is perfect time to make a few plans for the longer term and it’s
    time to be happy. I’ve read this post and if I may I desire to recommend you some
    fascinating things or advice. Perhaps you could write subsequent articles regarding this article.

    I want to read more issues approximately it!

  14. Thank you, I’ve just been looking for info approximately this subject for a while and yours is the
    best I’ve came upon so far. But, what concerning the bottom line?
    Are you sure in regards to the source?

  15. Undeniably believe that which you stated. Your favorite reason seemed to be on the net the simplest thing to be aware of.
    I say to you, I definitely get irked while people consider worries that they just don’t
    know about. You managed to hit the nail upon the top and defined out the whole thing
    without having side effect , people can take a signal.

    Will likely be back to get more. Thanks

  16. Wonderful goods from you, man. I have take into account your stuff
    prior to and you’re simply extremely wonderful. I really like what you have acquired right
    here, certainly like what you are saying and the way in which through which you assert it.
    You are making it entertaining and you still care for to
    keep it smart. I can’t wait to learn much more from you.
    That is really a terrific website.

  17. Hi I am so glad I found your weblog, I really found you
    by mistake, while I was browsing on Google for something else, Anyways I am here now and would just like to
    say many thanks for a marvelous post and a all round enjoyable blog
    (I also love the theme/design), I don’t have time to look over it
    all at the moment but I have saved it and also included your RSS feeds, so when I have time I will be
    back to read more, Please do keep up the fantastic b.

  18. Thanks for another informative blog. Where else may just I get that kind of info written in such an ideal approach?
    I have a undertaking that I am simply now running on, and
    I’ve been at the glance out for such info.

  19. Excellent weblog right here! Also your website a lot up
    fast! What web host are you the usage of? Can I am getting your affiliate link on your host?
    I desire my site loaded up as fast as yours lol

  20. Excellent goods from you, man. I’ve be aware
    your stuff prior to and you’re just too excellent.
    I really like what you have got here, really like what you are stating and the best way through which you
    assert it. You make it enjoyable and you still take care of to
    keep it wise. I can not wait to learn much more
    from you. This is actually a terrific site.

  21. Hello, Neat post. There is a problem along with
    your web site in web explorer, may check this? IE nonetheless is
    the market chief and a large portion of people will
    omit your great writing due to this problem.

  22. I think this is one of the such a lot vital info for me.
    And i am glad reading your article. But want to observation on some normal things, The web site style is wonderful, the articles is truly excellent
    : D. Excellent process, cheers

  23. What i don’t realize is in reality how you are now not
    really much more well-favored than you might be now.
    You’re very intelligent. You understand thus considerably in terms
    of this subject, made me in my view consider it from so many numerous angles.
    Its like men and women aren’t involved unless it’s one
    thing to do with Woman gaga! Your individual stuffs great.
    All the time take care of it up!

  24. you’re really a just right webmaster. The web site loading velocity is incredible.
    It seems that you are doing any unique trick. Moreover, The contents are masterpiece.

    you have performed a magnificent activity in this subject!

  25. What’s Happening i am new to this, I stumbled upon this I’ve
    discovered It positively useful and it has aided me out
    loads. I’m hoping to give a contribution & aid other users like its aided me.
    Good job.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button