Hot

বিএনপি নেতাকর্মীদের মুক্তি প্রসঙ্গে কাদের: আমেরিকার কথায় ছেড়ে দেবো? এটা কোনো কথা!

বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কোন দেশে অপরাধ করে শাস্তি হবে না! আমেরিকার কথায় আমরা ছেড়ে দেবো? এটা কোনো কথা! তাহলে ট্রাম্পের বিচার কেন হচ্ছে? আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে শীতার্ত মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের বলেন, ‘বাংলাদেশে এখন বিরোধী দল বিএনপি হচ্ছে ডামি দল, আর কোনো ডামি দলের দরকার নেই। ওরা ডামি হয়ে গেছে। শোকে শোকে পাথর হয়ে গেছে। নেতাকর্মীদের ঘুম নেই, সব আশা হারিয়ে ফেলেছে-সব হতাশায়। ওরা আন্দোলন করবে, আবার সারা বাংলাদেশে উত্তাল আন্দোলন হবে, জনতার ঢল নামবে, এসব শুনে ঘোড়াও হাসে। এরা নিজেদেরকে নিজেরাই ভুয়া করে ফেলেছে। 
বিএনপির এই মুহূর্তে আর কোনো আশা নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, নিষেধাজ্ঞাও নেই, ভিসা নীতিও নেই; আশায় আশায় দিন চলে যায়-রাত পোহায়; এই হলো বিএনপি।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নির্বাচন তো শেষ। নির্বাচন করেনি, কত বড় ভুল করেছে অচিরেই তারা সেটা টের পাবে।
বিএনপির ‘কালো পতাকা মিছিল’ কর্মসূচি শোক পালনের কর্মসূচি আখ্যা দিয়ে কাদের বলেন, এটা হলো শোক পালনের মিছিল। তারা নিজেরাই জাতিকে বলে দিচ্ছে যে, আমরা পরাজয় বরণ করেছি। সে জন্যই আমরা আজকে এই শোকের কালো পতাকা নিয়ে মিছিলের কর্মসূচি দিয়েছি।
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির ২৫ হাজার নেতাকর্মী; ট্রেনে আগুন দেয়া, বাসে আগুন দেয়া, পুলিশকে পিটিয়ে হত্যা করা, ৩৪ জন সাংবাদিককে নির্যাতন করা, প্রধান বিচারপতির বাড়িতে হামলা করা, জাজেস চেম্বারে গিয়ে হামলা করা, আনসার পিটিয়ে হত্যা করা-এসব অভিযোগে যারা অভিযুক্ত তারাই জেলে আছে। এখন তারা আইনগতভাবে মোকাবিলা করুক।

এসব অপরাধের সঙ্গে যারা জড়িত নয়, আইনি প্রক্রিয়ায় তারা বের হয়ে যাবেই। তারা লিগ্যাল ব্যাটেল করে বের হয়ে যাবে। 
তিনি বলেন, কোন দেশে অপরাধ করে শাস্তি হবে না! আমেরিকার কথায় আমরা ছেড়ে দেবো? এটা কোন কথা! তাহলে ট্রাম্পের বিচার কেন হচ্ছে? ৯১টি চার্জ, একটি নয়। ৯১টি চার্জে ট্রাম্পের বিচার হচ্ছে আমেরিকার আদালতে। যে দেশে প্রেসিডেন্ট অপরাধ করে, ক্যাপিটাল হিলে হামলা করে আজকে শাস্তি পাচ্ছে; প্রেসিডেন্টের আদালতে দাঁড়ানোও শাস্তি, সেই দেশ আমাদের কীভাবে বলে যে অপরাধীদের ছেড়ে দিতে হবে।
কারাবন্দি নেতাকর্মীর সংখ্যা জানিয়ে কাদের বলেন, সে ২৫ হাজার না কত হাজার, আমাদের জেলে এত লোক নেই। আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি, তিনি আমাকে বলেছেন ১১ থেকে ১২ হাজারের মতো আছে-যারা অপরাধ করে জেলে গেছে। এখন আবার জাতিসংঘকে দিয়েও বলাচ্ছে ২৫ হাজার, লবিং ভালোই করে। লবিংয়ে ওস্তাদ এ দল।
আওয়ামী লীগের শান্তি ও গণতন্ত্র সমাবেশ চলবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আপনারা যত আন্দোলনই করুন, আমাদের শান্তি ও গণতন্ত্র সমাবেশ অব্যাহত থাকবে। আন্দোলনটা করেন, ২৮ অক্টোবর আবার পাঁচ বছর পরে আসবে। তখন নির্বাচনকে সামনে রেখে আবার একটা আন্দোলন করার চেষ্টা করবেন। আপাতত আপনাদের আন্দোলনে আপনাদের নেতাকর্মীরাই সাড়া দেবে না, জনগণ ভুলে যান। জনগণ যে আন্দোলনে নেই, সেটা কীসের আন্দোলন। আপনার নেতাকর্মীরাও এই আন্দোলনে আসবে না। তারা সব হতাশ। কাজেই এই আন্দোলন মানুষের কাছে সামগ্রিক অর্থে মূল্যহীন। এর কোনো দাম নেই।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button